মঙ্গলবার, জুন ১৯, ২০১৮

ভোক্তার হাসিমুখ ইউডিসিতে

 

বাংলাদেশের লোকসংখ্যা ১৬ কোটি ২৩ লাখ হলে ভোক্তার সংখ্যাও ১৬ কোটি ২৩ লাখ। নিরাপদ পণ্য বা সেবা পাওয়ার অধিকার, তথ্য পাওয়ার অধিকার, পছন্দের অধিকার এবং প্রতিকার পাওয়ার অধিকার এ চারটি মৌলিক অধিকার রয়েছে সকল ভোক্তার। 
ভোক্তাদের স্বার্থ সংরক্ষণে ভোক্তা-অধিকার বিরোধী কার্য প্রতিরোধ এবং ভোক্তা-অধিকার লঙ্ঘনজনিত বিরোধ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ একটি গুরুত্বপূর্ণ আইন। উক্ত আইন অনুসারে নিম্নলিখিত ভোক্তা- অধিকার বিরোধী কার্যক্রম দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি কর্তৃক ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের নিকট অভিযোগ দাখিলের অনলাইন ফরম একসেবায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। যার মাধ্যমে উদ্যোক্তাগণ ক্ষতিগ্রস্থ ব্যক্তির পক্ষে অনলাইনে অভিযোগ দাখিল করতে পারবে।

* নির্ধারিত মূল্য অপেক্ষা অধিক মূল্যে কোন পণ্য, ঔষধ বা সেবা বিক্রয় বা বিক্রয়ের প্রস্তাব করা;
* জেনেশুনে ভেজাল মিশ্রিত পণ্য বা ঔষধ বিক্রয় বা বিক্রয়ের প্রস্তাব করা;
* স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক নিষিদ্ধ দ্রব্য কোন খাদ্য পণ্যের সাথে মিশ্রণ ও বিক্রয় করা
* নিষিদ্ধ ঘোষিত কোন কার্য করা যাতে সেবাগ্রহীতার জীবন বা নিরাপত্তা বিপন্ন হতে পারে;
* অবহেলা, দায়িত্বহীনতা দ্বারা সেবাগ্রহীতার অর্থ, স্বাস্থ্য বা জীবনহানি, ইত্যাদি ঘটানো;
* কোন পণ্য মোড়কাবদ্ধভাবে বিক্রয় করার এবং মোড়কের গায়ে পণ্যের উপাদান, খুচরা বিক্রয় মূল্য, মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ ইত্যাদি লিপিবদ্ধ করার বাধ্যবাধকতা লঙ্ঘন করা;
* আইনানুগ বাধ্যবাধকতা অমান্য করে দোকান বা প্রতিষ্ঠানের সহজে দৃশ্যমান কোন স্থানে পণ্যের মূল্য তালিকা লটকায়ে প্রদর্শণ না করা;
* আইনানুগ বাধ্যবাধকতা অমান্য করে দোকান বা প্রতিষ্ঠানের সেবার মূল্য তালিকা সংরক্ষণ না করা এবং সংশ্লিষ্ট স্থানে বা সহজে দৃশ্যমান কোন স্থানে উক্ত তালিকা লটকায়ে প্রদর্শণ না করা সহ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন অনুযায়ী জরিমানাযোগ্য অন্যান্য অপরাধ।